পাপিয়ার রিমান্ড কার্যকর করবে র‍্যাব

যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছে ঢাকা মহানগর আদালত।

মঙ্গলবার (০৪ আগস্ট) রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানার মাদক আইনে করা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পাপিয়া দম্পতির মাদক মামলায় রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন। ঢাকা মহানগর হাকিম দিদার হোসেন আবেদন মঞ্জুর করেন।

আরো পড়ুন- চুম্বন হোক নির্ভয়ে, কারণটা অবশ্যই খুশি হওয়ার মতো

জানা গেছে শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানের ৫ দিনের রিমান্ড কার্যকর করবে র‍্যাব। এর আগে ১১ মার্চ ঢাকা মহানগর হাকিম আদালত তাদের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। করোনাভাইরাসের কারণে এই রিমান্ড কার্যকর করা হয়নি। আজ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতের দেয়া রিমান্ড কার্যকর করতে আবেদন করেন। বিচারক তদন্তকারী কর্মকর্তার আবেদন মঞ্জুর করেন।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মহানগর হাকিম আদালত বিমানবন্দর থানার জাল টাকা উদ্ধারের মামলা, শেরেবাংলা নগর থানার মাদক ও অস্ত্র মামলায় পাঁচদিন করে ১৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

২২ ফেব্রুয়ারি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে দেশত্যাগের সময় পাপিয়াসহ চারজনকে গ্রেফতার করেন র‌্যাব সদস্যরা। গ্রেফতার অন্যরা হলেন- পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওরফে মতি সুমন (৩৮), সাব্বির খন্দকার (২৯) ও শেখ তায়্যিবা (২২)।

তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, নগদ দুই লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ টাকার জাল মুদ্রা, ১১ হাজার ৯১ ইউএস ডলারসহ বিভিন্ন দেশের মুদ্রা জব্দ করা হয়।

২২ ফেব্রুয়ারি গ্রেফতারের পর ওইদিন রাতেই নরসিংদীর বাসায় এবং পরদিন ২৩ ফেব্রুয়ারি ভোরে হোটেল ওয়েস্টিনে তাদের নামে বুকিং করা বিলাসবহুল প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটে অভিযান চালানো হয়।

এছাড়া ফার্মগেট এলাকার ২৮ নম্বর ইন্দিরা রোডে অবস্থিত রওশন’স ডমিনো রিলিভো নামক বিলাসবহুল ভবনে তাদের দুটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি পিস্তলের ম্যাগজিন, ২০ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, পাঁচ বোতল বিদেশি মদ ও নগদ ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, পাঁচটি পাসপোর্ট, তিনটি চেক, বিদেশি মুদ্রা, বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি ভিসা ও এটিএম কার্ড জব্দ করে র‌্যাব।

গ্রেফতারের দিন দল থেকে পাপিয়াকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়। বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নাজমা আকতার ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অপু উকিল স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ বহিষ্কারাদেশ দেয়া হয়।